শ্রীলঙ্কাকে ৪০০ রানের মধ্যে আটকাতে চায় বাংলাদেশ

চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথমদিনের খেলা শেষে ৪ উইকেটে ২৫৮ রান তুলেছে শ্রীলঙ্কা। অভিজ্ঞ দুই ব্যাটার অপরাজিত থেকে যাওয়ায় এগিয়ে সফরকারীরা। তবে বাংলাদেশের লঙ্কান স্পিন কোচ রঙ্গনা হেরাথ মনে করেন সমান অবস্থানে আছে দুই দল।





দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশের লক্ষ্য দ্রুত উইকেট তুলে নিয়ে প্রতিপক্ষকে চারশর মধ্যে আটকে ফেলা। দিনশেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে হেরাথ বললেন, ‘দিনের শুরুতে যত দ্রুত সম্ভব দুই উইকেট তুলে নিয়ে শ্রীলঙ্কাকে চারশ রানের মধ্যে আমরা বেঁধে ফেলতে চাই। আমার মনে হয় প্রথমদিনের খেলা শেষে দুই দলই সহাবস্থানে আছে।’

স্বাগতিকদের হতাশায় ডুবিয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। অভিজ্ঞ ডানহাতি ব্যাটারের অপরাজিত থেকে যাওয়া স্বাগতিকদের দুশ্চিন্তার কারণ। ম্যাথুজ ১১৪ ও দিনেশ চান্দিমাল ৩৪ রানে অপরাজিত আছেন। ৩৪.৪ ওভার স্থায়ী তাদের অবিচ্ছিন্ন পঞ্চম উইকেট জুটি ৭৫ রানের।

বাংলাদেশের জন্য দিনটা স্বস্তিরই হতে পারতো। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের সেঞ্চুরির কারণে হয়নি সেটি। তবুও লঙ্কানদের চার উইকেট তুলে নিয়েছেন বাংলাদেশের তিন স্পিনার। তাতে দিনশেষে খুশি বাংলাদেশ দলের স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথ।

তিনি বলেছেন, ‘টেস্টের প্রথম দিন হিসেবে যেভাবে তারা বল করেছে আমি তাতে খুশি। বিশেষত সাকিব ও তাইজুল, নাঈম হাসান দুই উইকেট নিয়েছে।

ফিরেই প্রথম ওভারে উইকেট তুলে নেন তিনি, পরে পেয়েছেন আরও এক উইকেট। লম্বা সময় ক্রিকেটের বাইরে থাকায় নাঈমের দরকার ছিল আত্মবিশ্বাস, যেটা প্রথম ওভারে উইকেটেই পেয়েছেন তিনি; মনে করেন হেরাথ।

তিনি বলেছেন, ‘নাঈম গত ১৮ মাসে খুব বেশি ক্রিকেট খেলেনি। কিন্তু প্র্যাক্টিস করেছে। তার কিছুটা আত্মবিশ্বাস দরকার ছিল, সৌভাগ্যবশত সে প্রথম ওভারেই উইকেট পেয়ে গিয়েছিল। সেখান থেকেই ও আত্মবিশ্বাসটা পেয়েছে। ’





সাকিবসহ পাঁচ বোলার নিয়ে খেলা প্রসঙ্গে হেরাথ বলেছেন, ‘আমি সবসময় বিশ্বাস করি টেস্টে পাঁচ বোলার নিয়ে খেলতে হবে। কারণ আমাদের ২০ উইকেট নিতে হবে। তাই পাঁচ বোলার নিয়ে খেলা ভালো। এটা সহজ আর একই সঙ্গে অন্যদের বিশ্রাম দেওয়া যায়। ২০ উইকেট নিতে হলে পাঁচ বোলার নিয়ে খেলাই ভালো।”