দলে রাসেল-ম্যাক্সওয়েলের মতো ব্যাটসম্যান না থাকায় পাওয়ার হিটিংয়ের বিকল্প বের করলেন কোচ জেমি সিডন্স

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে একটি দলের ব্যাটসম্যানদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে পাওয়ার হিটিং। ক্রিকেট বিশ্বে প্রায় প্রতিটি দলের রয়েছে বেশ কয়েকজন পাওয়ার হিটিং ব্যাটসম্যান। যারা যেকোনো মুহূর্তে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে।





যেমন ইংল্যান্ডের জস বাটলার, ভারতের হার্দিক পান্ডিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজের রয়েছে একাধিক ব্যাটসম্যান তার মধ্যে রাসেল অন্যতম।‌ এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল অন্যতম। তবে বাংলাদেশে হাজার চেষ্টা করেও এমন একজন ব্যাটসম্যান তৈরি করতে পারিনি।

অবশেষে এই সমস্যার সমাধান বের করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ব্যাটিং কোচ জেমি সিডন্স। তিনি জানিয়েছেন পাওয়ার হিটিংয়ে মনোযোগ না দিয়ে বরং সিঙ্গেল এবং চারের দিকে বেশি মনোযোগ দেয়া উচিত বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের।

ব্যাটিং কোচ বললেন, “জাতি হিসেবে আমার মনে হয় না আমাদের খুব দীর্ঘকায় গড়নের খেলোয়াড় রয়েছে। যেমন জস বাটলার ৬ ফুট ২ ইঞ্চি, বড় শরীর… গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও ৬ ফুট ২। মার্কাস স্টয়নিসের বড়সড় দৈহিক গড়ন… তাই আমাদের অন্য উপায় খুঁজতে হবে।”

“আমরা দৈহিক গড়নে অন্য দলগুলোকে পেছনে ফেলতে পারবো না। আমার মতে, আমাদের বোলিং বিভাগ খুব ভালো। আমার মনে হয় না, আমাদের অনেক বেশি রান করতে হবে। বোর্ডে একটা ভালো সংগ্রহ দাঁড় করাতে হবে। তো সিঙ্গেল অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ”।

“তবে পাওয়ার হিটিং অবশ্যই টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জেতায়। যত বেশি বাউন্ডারি, তত বেশি ম্যাচ জেতা যায়। তাই আমাদের এখনও পাওয়ার হিটিংয়ে মনোযোগ দিতে হবে, ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। অনেক চার মারতে হবে… আপনি জানেন এটি (চার মারা) অনেকগুলো ছক্কা মারার মতোই।’- আরও যোগ করেন সিডন্স”।

কোচের মতে বাংলাদেশের জয়ের জন্য বিশাল সংগ্রহ করতে হবে তা নয়। প্রয়োজন লড়াকু সংগ্রহ। বাকি কাজ বোলারদের। সিডন্স জানান, বাংলাদেশের বোলারদের পারফরম্যান্স ভালো, ভালো সংগ্রহ হলেই তারা ম্যাচ বের করে নিয়ে আসতে পারবেন। তিনি বললেন,





“আমরা যদি অনেক চার মারতে পারি, অনেক সিঙ্গেল নিতে পারি… পাশাপাশি কিছু ছক্কা হাঁকালে আমরা বোর্ডে ভালো স্কোর জমাতে পারবো। এরপর আমাদের বোলিং আক্রমণ বাকিটা সামলে নিতে পারবে। আমাদের বিশাল স্কোর করতে হবে না”।