৩ রানে ৩ উইকেট নিয়ে খেলা জমিয়ে দিলেন খালেদ আহমেদ

দ্বিতীয় ইনিংসে শুরুটা বিধ্বংসী বোলিং করেছেন খালেদ আহমেদ। ৮৪ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশি পেসার খালেদ আহমেদের করা দুই ওভারেই তিন উইকেট হারাল ওয়েষ্ট ইন্ডিজ। ৯ রান তুলতেই তারা হারিয়ে বসেছে ৩ উইকেট। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বল হাতে নিয়ে জোড়া শিকার করেছেন খালেদ আহমেদ। নিজের পরের ওভারে তুলে নিয়েছেন আরও এক উইকেট।





ডানহাতি এই পেসারের প্রথম শিকার ক্রেইগ ব্রেথওয়েট। লেগসাইডে বেরিয়ে যেতে থাকা বলে ব্যাট ছুঁইয়ে উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহানের দুর্দান্ত এক ডাইভিং ক্যাচ হয়েছেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক (১)।

তিন বল পর রেইমন রেইফারকে (২) সাজঘরের পথ দেখিয়েছেন খালেদ। বল ছাড়তে গেলে শেষ মুহূর্তে গ্লাভসে লেগে যায়, উইকেটের পেছনে ক্যাচটি লুফে নিতে ভুল করেননি সোহান। পরের ওভারে এসে এনক্রুমাহ বোনারকে (০) দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে বোল্ড করেছেন খালেদ।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৪.৩ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৯ রান। জন ক্যাম্পবেল ৬ আর জার্মেই ব্ল্যাকউড শূন্য রানে অপরাজিত আছেন।

তৃতীয় দিনের শুরুতে ব্যাট করতে নামেন আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটার মাহমুদুল হাসান জয় ও নাজমুল হোসেন শান্ত। দিনের শুরুতে দেখে-শোনেই খেলছিলেন তারা। কিন্তু বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি শান্ত। কাইল মেয়ার্সের করা বলে মাত্র ১৭ রানে জন ক্যাম্পবেলের হাতে ক্যাচ তুলে দেন তিনি।





আর পরের উইকেটে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৪ রানে ফেরেন মুমিনুল। এবারও ঘাতক সেই মেয়ার্স। লিটনের ব্যাট থেকে এসেছে ১৭ রান। এদিকে শুরু থেকেই ধৈর্য্যের পরীক্ষা দিয়ে আসছিলেন ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত থেমেছেন ৪২ রানে।

কেমার রোচের করা বলে কটবিহাইন্ড হন তিনি। ১৫৩ বলে খেলা ইনিংসটি তিনটি চারে সাজানো। সপ্তম উইকেট জুটিতে উইকেটকিপার ব্যাটার নুরুল হাসান সোহানকে সঙ্গে নিয়ে খুঁটি গেড়ে ব্যাট করে যান দলনেতা সাকিব আল হাসান। এ সময় দুজন মিলে গড়েন এখন পর্যন্ত দুজন মিলে গড়েছেন ১২৩ রানে জুটি।

সাকিব তুলে নিয়েছেন ব্যক্তিগত অর্ধশতক। এরপর কেমার রোচের করা বলে ব্যক্তিগত ৬৩ রানে ফেরেন সাকিব। ৯৯ বলে খেলা ইনিংসটি ছয়টি চারে সাজানো।সাকিব আল হাসানের পর এবার রোচের শিকার নুরুল হাসান সোহান। তার ব্যাক অব লেন্থের বল সোহানের ব্যাটের কানায় লেগে যায় উইকেটের পেছনে।

বাংলাদেশের শেষ আশা তালুবন্দি হয় ডা সিলভার গ্লাভসে। আউট হওয়ার আগে ব্যক্তিগত অর্ধশতক পূর্ণ করে ৬৪ রান করেন সোহান। আর ব্যাট করতে নেমেই ছক্কা মারেন মোস্তাফিজুর রহমান। এরপর একটি সিঙ্গেল নিয়ে আলযারি জোসেফের বলে বোল্ড আউট হন তিনি। এরপর ১ রানে আউট হন ইবাদত। আর শূন্যরানে অপরাজিত থাকেন খালেদ।

এদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে দশম ফাইফার পূর্ণ করেন পেসার কেমার রোচ। সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক টেস্ট ক্রিকেটে ক্যারিবিয়ানদের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারির তালিকায় কিংবদন্তি ক্রিকেটার মাইকেল হোল্ডিংকে স্পর্শ করলেন তিনি। রোচের পাঁচ উইকেট ছাড়াও আলযারি জোসেফ তিনটি ও কাইল মেয়ার্স দুটি উইকেট নেন।





এর আগে ম্যাচের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে সাকিব আল হাসানের ফিফটির পরও সবকটি উইকেট হারিয়ে মাত্র ১০৩ রা সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ দল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস থেমেছে ২৬৫ রানে। ফলে ১৬২ রানের লিড পায় স্বাগতিকরা।