বল হাতে অবিশ্বাস্য রেকর্ড গড়লেন রস টেলর। জড়িয়ে রইলো এবাদত হোসেনের নাম

টেস্ট ক্রিকেট ক্যারিয়ারে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন নিউজিল্যান্ডের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান রস টেলর। ২০০৬ সালে ওয়ানডে ক্রিকেট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় নিউজিল্যান্ডের বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান রস টেলরের। এক বছর পর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হয় তার।





ক্রিকেট ক্যারিয়ারের দীর্ঘ সময় পার করেছেন নিউজিল্যান্ডের এই কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান। তবে সময় হয়েছে পরিসমাপ্তির। এই বছরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। তবে ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন বাংলাদেশের বিপক্ষে।

ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচের স্মরণীয় করে রাখলেন নিউজিল্যান্ডের এই কিংবদন্তি ক্রিকেটার। ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে ইতিহাস করেছেন তিনি। ক্যারিয়ারের শেষ টেস্টের একেবারে শেষ মুহূর্তে এমন এক রেকর্ড গড়েছেন, যা বিশ্বের আর কোনো ক্রিকেটারের নেই। সেই রেকর্ডে জড়িয়ে আছে টাইগার পেসার এবাদত হোসেনর নাম।

তৃতীয় দিনে ৯ উইকেট হারিয়ে নিশ্চিত জয়ের পথে হাঁটছিল নিউজিল্যান্ড। এইসময় ইনিংসের ৮০তম ওভারে টেইলরের হাতে বল তুলে দেন কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথাম। ওভারের তৃতীয় বলে টেইলর আউট করেন এবাদত হোসেনকে। এরই সঙ্গে বাংলাদেশ অল-আউট হয়ে যায় ২৭৮ রানে।

টেইলর ০.৩ ওভার বল করে কোনো রান খরচ না করেই ১ উইকেট শিকার করেন। তিনিই বিশ্বের একমাত্র ক্রিকেটার, যিনি ক্যারিয়ারের শেষ টেস্টে কোনো রান না দিয়ে উইকেট নিয়েছেন। স্পেশালিস্ট ব্যাটার টেইলরের টেস্ট ক্যারিয়ারে উইকেটসংখ্যা মোট ৩টি। তিনি শেষবার টেস্ট ক্রিকেটে উইকেট নিয়েছিলেন ১২ বছর আগে।





২০২১ সালে আহমেদাবাদ টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের হরভজন সিং ও শ্রীশান্তকে আউট করেছিলেন। এটাও রেকর্ড বটে। দুটি উইকেট শিকারের মধ্যবর্তী সময়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট খেলার রেকর্ড এতদিন ছিল লঙ্কান কিংবদন্তি মাহেলা জয়াবর্ধনের। তিনি ৮০টি টেস্টের ব্যবধানে নিজের দুটি টেস্ট উইকেট নিয়েছিলেন। সেই রেকর্ডের পাশে এখন টেইলরের নাম লেখা থাকবে।