ভাই, তুমি যদি এই পিচে এমন বোলিং করো তবে কেউ তোমাকে মারতে পারবে না : আউট হয়ে এবাদতকে বলেছিলেন রস টেলর

বাংলাদেশে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে সমালোচনা করা যেন অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। কোন ক্রিকেটার টানা ৩-৪ ম্যাচ খারাপ করলেই শুরু হয়ে যায় তাকে নিয়ে নানা সমালোচনা। ঠিক তেমনটাই হচ্ছিল বাংলাদেশ দলের ফাস্ট বোলার এবাদত হোসেনকে নিয়ে।





নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে আবু জায়েদ রাহির পরিবর্তে একাদশে এবাদত হোসেনের সুযোগ পাওয়াটা অনেকেই ভালো চোখে দেখেননি। এমনকি প্রথম টেস্ট ম্যাচের প্রথম ইনিংসে তেমন ভালো বোলিং করতে পারেননি ইবাদত হোসেন। ৪.১৪ ইকোনমিক রেটে মাত্র ১ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন তিনি।

শুধু তাই নয় ক্যারিয়ারের প্রথম ১০ ম্যাচে তিনি তুলে নিয়েছিলেন মাত্র ১১টি উইকেট। তবে সব হিসাব-নিকাশ তিনি পাল্টে দিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে। বিশেষ করে টেস্টের চতুর্থ দিনের বিকালে এক স্পেলে ম্যাচের ভাগ্য পরিবর্তন করে দেন এবাদত হোসেন। মাত্র ৭ বলে ব্যবধানে তিনি তুলে নেন নিউজিল্যান্ডের গুরুত্বপূর্ণ তিনটি উইকেট।

উইল ইয়ং, হেনরি নিকোলস এবং টম ব্লান্ডেলকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়েছিলেন এবাদত। তবে দিনশেষে বাংলাদেশের জন্য গলার কাঁটা হয়ে থাকেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান রস টেলর। সুযোগ তৈরি করেও তাকে আউট করতে পারছিলেন না এবাদত হোসেন।

তবে পঞ্চম দিনের শুরুতেই তার উইকেট তুলে নিয়ে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ৫ উইকেট তুলে নেন এবাদত হোসেন। রস টেলরের উইকেট তুলে দেওয়ার পর তার সাথে কথা বলতে দেখা গিয়েছিল এবাদত হোসেনের। ম্যাচের ওই মুহূর্তে টেইলারের সাথে কি কথোপকথন হয়েছিল সেটি তিনি জানিয়েছেন ইএসপিএনক্রিকইনফোকে।

আউট হওয়ার পর রস টেলর এবাদত হোসেনকে বলেছিলেন এই পিচে এমন বোলিং করলে তোমাকে কেউ মারতে পারবে না। ইএসপিএনক্রিকইনফোকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এবাদত হোসেন বলেন,





“আমি রস টেলরকে বলেছিলাম যে আপনি এত ভাল মারতে পারেন, আপনি আমাকে মারছেন না কেন? তিনি বলেছিলেন, ‘ভাই, আপনি যদি এই পিচে এমন বোলিং করেন তবে কেউ আপনাকে মারতে পারবে না।'”