চারদিনেই নিউজিল্যান্ডকে শাসন করেছে বাংলাদেশ : লুক রঙ্কি

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে চতুর্থ দিন শেষে চালকের আসনে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের বিপক্ষে‌প্রথম ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের করা ৩২৮ রানের জবাবে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ৪৫৮ দিনে। চতুর্থ দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দ্রুতই ৬৩ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ফেলে কিউইরা।





তবে রস টেলর ও উইল ইয়াং ৭৩ রানের জুটি গড়ে এগিয়ে নেন দলকে। ৫৪ ওভারে দলীয় ১৩৬ রানের মাথায় এবাদতের বলে ইয়াং ৬৯ রান করে ফেরার এক বল পরেই শূন্য রানে ফেরেন হ্যানরি নিকলস। ৫৬ ওভারের তৃতীয় বলে আবারও আঘাত এবাদতের টম ব্লান্ডেলকে ফেরান (শূন্য রানে) ১৩৬ রানের মাথায়।

তাতে নিউজিল্যান্ডের দিন শেষ হয় ১৪৭ রানে ১৭ রানের লিড নিয়ে। বাংলাদেশের সামনে এখন একটাই লক্ষ্য যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নিউজিল্যান্ডকে অলআউট করে ম্যাচ শেষ করতে। তবে এখনই হাল ছাড়তে নারাজ নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং কোচ লুক রঙ্কি।

“এই মুহূর্তে আমরা বেশ পিছিয়ে আছি। আমাদের এমন একটি লিড দরকার যা ম্যাচ বাঁচানোর জন্য যথেষ্ট এবং পাশাপাশি উইকেট নেওয়ার জন্যও যথেষ্ট। এখন আমাদের রানের সঙ্গে টিকে থাকাটাও জরুরি। আমরা সত্যিই এর চেয়ে বেশি কিছু করতে পারি না।”

তবে লুক রঙ্কি মনে করিয়ে দেন চারদিনেই কিউইদের শাসন করেছে বাংলাদেশ, “আমি মনে করি পুরোটা সময় বাংলাদেশ চাপ প্রয়োগ করেছে। তারা চমৎকার বোলিং করছিল এবং এটি আমাদের জন্য কঠিন করে তুলছিল। প্রথম দিনের শুরুতে উইকেটে একটু বেশি ঘাস ছিল যা ইনিংসে বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে, এটাও ক্রিকেটের স্বভাব। আমি জানি আপনি সব সময় রান করতে পারেন না এবং দুর্ভাগ্যবশত এটি মানুষের সাথে ঘটে।”

রনকির মতে মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে চতুর্থ দিনের শুরুটা স্বাগতিকদের জন্য ভালো হলেও ফের ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় বাংলাদেশ। তিনি বলেছেন, “প্রথম সেশন অবশ্যই অনেক ভালো ছিল, যখন আমরা উইকেটগুলো নিয়ে আবারো ব্যাটিংয়ে ফিরলাম।”





“তারপর উইল ইয়াং ও রস টেলর সুন্দর একটা পার্টনারশিপ গড়ে এগিয়ে যাচ্ছিল যা আমাদের ব্যবধান কমাতে সহায়ক ছিল। যখনই আমরা লিড নিলাম, তারপর খুব বাজে সময়ে গুরুত্বপূর্ণ উইকেটগুলো হারালাম। তাই আমার মনে হয়, এই টেস্ট ম্যাচের বেশিরভাগ অংশই বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রণে ছিল।”