সাকিব-তাসকিনের বিধ্বংসী বোলিংয়ে তামিমদের বিপক্ষে জয় তুলে নিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ১৮তম ম্যাচে আজ তামিম ইকবালের প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ২৭ রানে হারিয়েছে সাকিবের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। আগে ব্যাট করে তামিমদের ১৫১ রানের টার্গেটে দেয় মহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৯.৩ ওভারে ১০ উইকেট হারিয়ে ১২৩ রান সংগ্রহ করে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব।





ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের হাইভোল্টেজ ম্যাচ প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৪.৩ ওভারে ৪০ রান যোগ করেন দুই ওপেনার ব্যাটসম্যান মাহমুদুল হাসান এবং পারভেজ হোসেন ইমন। ১৮ বলে তিনটি চার এবং একটি ছক্কায় সাহায্যে ৩০ রান করে নাহিদুল ইসলামের বলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মাহমুদুল হাসান।

তবে অন্য প্রান্ত থেকে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন পারভেজ হোসেন ইমন। ৩৮ বলে তিন টিচার এবং চারটি ছক্কা সাহায্যে ৫০ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। তবে এরপর শামসুর রহমানকে সাথে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। কিন্তু মোহামেডানের হয়ে গলায় কাঁটা হয়ে ওঠেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান।

দলীয় ১৮ ওভারের মাথায় ব্যক্তিগত তৃতীয় ওভারে এসে তিনটি উইকেট তুলে দেন তিনি। প্রথমেই তুলে নেন সাকিব আল হাসানকে। ১৫ বলে ২০ রান করা সাকিবকে বোল্ড আউট করেন মুস্তাফিজ। একই ওভারে শুভাগত হোম এবং শামছুর রহমানের উইকেট তুলে নেন মোস্তাফিজ।। শামসুর রহমান করেন ৩৩ রান এবং শুভাগত হোম ৪ রান করে।

শেষ ওভারে এসেও উইকেটের দেখা পান মুস্তাফিজ। এক রান করা আবু হায়দার রনির উইকেট তুলে নেন তিনি। একবাল পরেই তিনি তুলে দেন তাসকিন আহমেদের উইকেট। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫০ রান সংগ্রহ করে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ২২ রানের বিনিময়ে পাঁচটি উইকেট নিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান।

১৫১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই চাপে পড়ে প্রাইম ব্যাংক। দলীয় ১০ রানের মাথায় তাসকিন আহমেদের বলে মাত্র ৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক আনামুল হক বিজয়। এরপর রনি তালুকদার কে সাথে নিয়ে কিছুটা চাপ সামাল দিচ্ছিলেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

দলীয় ৪৫ রানের মাথায় শুভাগত হোমের বলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তামিম ইকবাল। ২০ বলে ২০ রান করেন তামিম। এর পরেই জোড়া উইকেট তুলে নেন সাকিব আল হাসান। ১৯ রান করা রনি তালুকদারকে আউট করেন সাকিব।

একই ওভারে অলক কাপালির উইকেট তুলে নেন তিনি। এরপরে ৫ রান করা নাহিদুল ইসলামকে আউট করেন আবু জাহেদ রাহি। ৬ রান করা রকিবুল হাসানের উইকেট তুলে নেন আবু হায়দার রনি। অপরপ্রান্ত থেকে ভালোই খেলছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন।

তবে শুরুটা ভালো করতে পারলেও ইনিংসে বড় করতে পারেননি তিনি। ইনিংসের ১৬ তম ওভারে আবু জাহেদ রাহির জোড়া উইকেটের শিকার হন তিনি। ১৮ বলে ২ ছক্কায় দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন মোহাম্মদ মিঠুন। ০ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন শরিফুল ইসলাম।





শেষ ওভারে জোড়া ওইকেট তুলে নেন তাসকিন। আউট করেন মনির হোসেন এবং মোস্তাফিজুর রহমানকে। ৩.৩ ওভারে ১৫ রানের বিনিময়ে ৩ উইকেট তুলে নেন তাসকিন। ৪ ওভারে ১৬ রানের বিনিময়ে ২ উইকেট তুলে নেন সাকিব আল হাসান। ৩৩ রানে ৩ উইকেট তুলে নেন আবু জাহেদ রাহি।