চাইলেই বাংলাদেশে কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার পাঠিয়ে সিরিজ জিততে পারতাম : শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক

বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে কোন প্রকারের সম্মান নিয়ে দেশে ফিরেছে শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দল। টাইগারদের কাছে প্রথম দুই ম্যাচে নাস্তানাবুদ হয়ে শেষ ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে দেশে ফিরেছে শ্রীলঙ্কা। তবে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে সিরিজ হারের কারণে নানা সমালোচনার মুখে পড়েছে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড।





তবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক প্রমধ্য বিক্রমাসিংহে জানিয়েছেন অন্য কথা। তিনি জানিয়েছেন চাইলেই কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার দলে নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ জিততে পারতেন।

এছাড়াও তিনি দাবি করেছেন তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে তরুণদের সুযোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত সঠিক বলে প্রমাণিত হয়েছে। লঙ্কান ইংরেজি সংবাদপত্র ‘ডেইলি নিউজ’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিক্রমাসিংহে বলেন, ‘আমরা তিনজনের অভিষেক করিয়েছি। যদি শেষ ম্যাচটা হারতাম, তবে সবাই নির্বাচকদের দোষারূপ করতো।’

তবে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান লক্ষ্য ২০২৩ বিশ্বকাপে দিকে। মূলত বিশ্বকাপকে সামনে রেখেই দল সাজাচ্ছে তারা। তবে সিনিয়র ক্রিকেটারদেরকে ভুলে যেতে চান না লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান।

“আমাদের আসল মনোযোগ ২০২৩ বিশ্বকাপের দিকে। তাই আমরা সবসময়ই তারুণ্যের কথা ভাবি, তবে সিনিয়রদেরও ভুলে যেতে চাই না। আমরা তরুণদের ম্যাচ প্র্যাকটিসের সুযোগ দিতে চেয়েছিলাম, সেটা না করতে দিলে তারা অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবে না।’

তবে তিনি দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশের বিপক্ষে সিনিয়র ক্রিকেটারদের নিয়ে দল সাজালে সিরিজ জিততে পারেন তারা। এ সময় তিনি আরো বলেন,

“বাংলাদেশে সিনিয়রদের নিয়ে দল সাজালে তারা জিততে পারতেন। তার ভাষায়, ‘আমরা চাইলেই কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার দলে নিয়ে জিততে পারতাম। সেটা করলে কৃতিত্বও নেয়া যেতো। কিন্তু আমরা ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়েছি।’





শ্রীলঙ্কার এই দলটি তারুণ্য এবং অভিজ্ঞতার মিশেলে তৈরি করার উদ্দেশ্যই ২০২৩ বিশ্বকাপ, জানিয়ে লঙ্কান প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘এটা পুরোপুরি নতুন দল নয়। লক্ষ্য হলো ২০২৩ বিশ্বকাপ। আমি শুধু বলতে পারি, আমরা বর্তমান দলটি গড়েছি সামনের কথা চিন্তা করে।’