এবি ডি ভিলিয়ার্সের বিধ্বংসী ইনিংসে শেষ বলের নাটকীয়তায় টানটান উত্তেজনায় মুম্বাই বিপক্ষে ম্যাচে জিতল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ আইপিএল এর উদ্বোধনী ম্যাচে টানটান উত্তেজনায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ২ উইকেটে হারিয়েছে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। উদ্বোধনী ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুকে ১৬০ রানে টার্গেট দেয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।





জবাবে ব্যাট করতে নেমে‌ ইনিংসের শেষ বছরে নাটকীয়তায় ২ উইকেটে জয় লাভ করে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। বেঙ্গালুরু জয়ের অন্যতম নায়ক ছিলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। শেষের দিকে তার ২৭ বলে ৪৭ রানের ইনিংসের উপর ভর করে ম্যাচে জিতেছে বেঙ্গালুরু।

জয় জন্যশেষ তিন ওভারে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর প্রয়োজন ৩৪ রান। তবে তখনো ব্যাটিংয়ে ছিলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু সহজটা সহজ হলো না। শেষ ওভারে ৬ বলে দরকার পড়ে ৭ রান।

মার্কো জানসেনের করা নিয়ন্ত্রিত সেই ওভারের প্রথম ৩ বলে ৪ রান আসলেও চতুর্থ বলে ডাবলস নিতে গিয়ে রানআউট হন ডি ভিলিয়ার্স। ২৭ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ৪৮ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলা এই ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর আবার জমে উঠে ম্যাচ।

পরের বলে মোহাম্মদ সিরাজের পায়ে লেগে বাই এক রান হলে শেষ বলে গড়ায় লড়াই। ওই বলটি ব্যাঙ্গালুরুর মিস হলে টাই হয়ে যেতে পারতো। তবে রোমাঞ্চকর এই লড়াইয়ের শেষটা হয়েছে বল হাতে ম্যাচের নায়ক হার্শাল প্যাটেলের ব্যাটেই। জানসেনের ইয়র্কার ডেলিভারি শর্ট ফাইন লেগে ঠেলে হার্শাল এক রান পূর্ণ করতেই আনন্দে ফেটে পড়ে ব্যাঙ্গালুরু শিবির।

বিপর্যয়ে পড়ার আগে অবশ্য ব্যাঙ্গালুরুকে ভরসা দিয়েছিলেন বিরাট কোহলি আর গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। এর মধ্যে কোহলি সেভাবে হাত খুলে খেলতে পারেননি। ২৯ বলে ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক করেন ৩৩ রান। ম্যাক্সওয়েলের ব্যাট থেকে আসে ২৮ বলে ৩৯।





এর আগে ক্রিস লিন, সূর্যকুমার যাদব, ইশান কিশানরা একটা সময় বড় সংগ্রহের স্বপ্ন দেখালেও শেষ পর্যন্ত পুঁজিটা খুব বড় হয়নি মুম্বাইয়ের। ৯ উইকেটে ১৫৯ রানে থামে রোহিত শর্মার দল।