তসলিমার টুইটার অ্যাকাউন্ট সরিয়ে ফেলার দাবি জানিয়েছে জোফরা আর্চার সহ ইংল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার

হঠাৎ করেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্কিত মন্তব্য করে বড় ধরনের বিতর্ক সৃষ্টি করলেন বাংলাদেশের লেখিকা তসলিমা নাসরিন। গত সোমবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে একটি টুইটে তসলিমা মন্তব্য করেন, মঈন ক্রিকেট না খেললে বিশ্বব্যাপী ত্রাস ছড়ানো সন্ত্রাসী গ্রুপ আইএসআইএসে যোগ দিতেন।





বাংলাদেশের এই লেখিকার এই মন্তব্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ঝড় উঠেছে। তাই এই বিতর্কিত মন্তব্যের জবাব দিয়েছেন ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী দলের ফাস্ট বোলার জোফরা আর্চার।

তসলিমা টুইট করেছিলেন, ‘মঈন আলী যদি ক্রিকেটের সঙ্গে না থাকতেন, তাহলে সিরিয়ায় গিয়ে আইএসআইএসে যোগ দিতেন।’ এই টুইটকে হালকাভাবে নেননি আর্চার। ৯৬টি আন্তর্জাতিক উইকেট নেওয়া বিশ্বকাপ জয়ী পেসার রিটুইটে লিখেছেন, ‘আপনি কি সুস্থ-স্বাভাবিক? আমার মনে হয় না।’

বিতর্কের ঝড় ওঠায় পরিবেশ শান্ত করার চেষ্টা করতে আবার টুইট করেন তসলিমা। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) বিকালের দিকে আরেক টুইটে তিনি লেখেন, ‘নিন্দুকেরা খুব ভালো করেই জানে যে মঈন আলীকে নিয়ে করা আমার টুইট ছিল ব্যাঙ্গাত্মক। কিন্তু আমাকে অপদস্ত করতে তারা এটাকে ইস্যু বানিয়েছে।

কারণ আমি মুসলিম সমাজকে ধর্মনিরপেক্ষ করার চেষ্টা করি এবং ইসলামী ধর্মান্ধতার বিরোধিতা করি। মানবজাতির অন্যতম ট্র্যাজেডির বিষয় হলো, একজন নারীবাদী বামপন্থি একজন নারী বিরোধী ইসলামপন্থিদের সমর্থন দেয়।’

আর্চার কিন্তু এতে শান্ত হননি। তিনি তসলিমাকে টুইটটি ডিলিট করার দাবি জানান, ‘ব্যাঙ্গাত্মক? কেউ তো হাসছে না, এমনকি আপনিও না। এখন অনন্ত যে কাজটা আপনি করতে পারেন তা হলো টুইটটি ডিলিট করে ফেলা।’

সাবেক ইংল্যান্ড পেসার রায়ান সাইডবটম তো তসলিমার টুইটার অ্যাকাউন্ট সরিয়ে ফেলার দাবি জানান, ‘আমার মনে হয় আপনি সুস্থ আছেন কি না তা আপনার যাচাই করা উচিত। আপনি আপনার অ্যাকাউন্টটিও মুছে ফেলতে পারেন।’





মদ প্রস্তুতকারক কোনো প্রতিষ্ঠানের লোগো নিজের জার্সিতে ব্যবহার করেন না মইন। তার এবারের আইপিএল দল চেন্নাই সুপার কিংসের জার্সিতে আছে তেমন একটি লোগো। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, ওই প্রতিষ্ঠানের লোগো নিজের জার্সিতে না রাখার অনুরোধ করেছেন তিনি। পরে অবশ্য ফ্র্যাঞ্চাইজির পক্ষ থেকে জানানো হয়, খবরটি সত্য নয়।